1. sarifhafiz48@gmail.com : livenewsdesk desk : livenewsdesk desk
  2. mehedihasan.mhs078@gmail.com : Arif Molla : Arif Molla
  3. jmitsolutionbd@gmail.com : jmmasud :
  4. livenewsbd24@gmail.com : Mehedi Hasan : Mehedi Hasan
প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার তারিখ চূড়ান্ত হয়নি - Livenews24
বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ০৬:৪৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মাদারীপুর বিপুল পরিমান গাজাঁসহ দুইজন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার কেউ দাবায়ে রাখতে পারেনি, আমরা বিজয়ী হয়েছি: প্রধানমন্ত্রী পদ্মা পাড়ে উৎসব শুরু আগামী মৌসুমে চিরচেনা ফর্মে দেখা যাবে মেসিকে আমন্ত্রণ পাননি খালেদা জিয়া, নিশ্চিত নন ড. ইউনূস, যেতে চান ডা. জাফরুল্লাহ খারকিভে লাগাতার হামলা করোনায় বেড়েছে শনাক্তের হার, মৃত্যু ১ জাতির সব অর্জনই এসেছে আওয়ামী লীগের হাত ধরে: তথ্যমন্ত্রী তিন জেলায় স্বল্পমেয়াদী বন্যা হতে পারে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা অপরিবর্তিত বাংলাবাজারে প্রস্তুত হচ্ছে ১৫ ঘাট বন্যার কারণে ছয় দিন বন্ধ থাকার পর সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ফ্লাইট চলাচল শুরু মিথ্যা বানানো আর বলার কারখানা বিএনপি জামালপুরে টিসিবির পণ্য বিক্রি শুরু জামালপুরে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার তারিখ চূড়ান্ত হয়নি

  • প্রকাশিত : বুধবার, ১৬ মার্চ, ২০২২
  • ৫৯ শেয়ার এবং সংবাদটি পড়েছেন।

অনলাইন ডেস্ক।।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪৫ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষার তারিখ এখনও চূড়ান্ত হয়নি। সম্প্রতি তারিখ ও সময় উল্লেখপূর্বক পরীক্ষা সংক্রান্ত যে দুটি চিঠি প্রকাশিত হয়েছে, সেগুলো কেন্দ্র বাছাইয়ের অংশ।

কেন্দ্র নির্বাচন শেষ হওয়ার পর কয়েক ধাপে অনুষ্ঠেয় প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের আনুষ্ঠানিক তারিখ জানানো হবে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের সহকারী শিক্ষা অফিসার (অতিরিক্ত মহাপরিচালক দপ্তর) মো. মোস্তফা ফারুক খান।

তিনি ঢাকা পোস্টকে বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের তারিখ এখনো চূড়ান্ত হয়নি। অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ও অতিরিক্ত মহাপরিচালকের সই করা চিঠি দুটি কেন্দ্র বাছাই প্রক্রিয়ার অংশ।

তিনি আরও বলেন, লিখিত পরীক্ষা নেওয়ার জন্য যেসব প্রতিষ্ঠানকে প্রাথমিকভাবে নির্বাচন করা হয়েছে, সেগুলোর কোন কক্ষে কতজনের পরীক্ষা নেওয়া যাবে, তা অধিদপ্তরকে ইমেইল করে জানানোর জন্যই চিঠি পাঠানো হয়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে তথ্য পাওয়ার পর আমরা টেলিটককে জানিয়ে দিব। তারা প্রার্থীদের এসএমএস দিয়ে কেন্দ্র ও তারিখ জানিয়ে দেবে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে পাঠানো দুটি চিঠিই ঢাকা পোস্টের হাতে আছে। প্রথম চিঠিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বরাবর পাঠানো হয় ১০ মার্চ। অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) সোহেল আহমেদের সই করা চিঠিতে বলা হয়েছে, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০২০ এর লিখিত পরীক্ষা আগামী ১, ৮, ১৫, ২২ ও ২৮ এপ্রিল কেন্দ্রীয়ভাবে ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে। নির্ধারিত তারিখে সকাল ১০টায় বা বিকেল ৩টায় পরীক্ষা হবে।

পরীক্ষা গ্রহণের জন্য সার্বিক সহায়তা দিতে অনুরোধ জানিয়ে চিঠিতে বলা হয়েছে, নির্ধারিত তারিখ ও সময়ে লিখিত পরীক্ষা গ্রহণের জন্য আপনার প্রতিষ্ঠানকে নির্বাচন করা হয়েছে। আপনার প্রতিষ্ঠানের কোন কক্ষে কতজনের পরীক্ষা নেওয়া যাবে, তা ১৫ মার্চের মধ্যে অধিদপ্তরের ইমেইলে জানানোর অনুরোধ করা হলো।

অন্য চিঠিটি পাঠানো হয়েছে ১৩ মার্চ। এতে সই করেছেন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম। এ চিঠিতে চার ধাপে পরীক্ষা হওয়ার কথা বলা হয়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠানো এ চিঠিতে বলা হয়েছে, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ ২০২০ -এর লিখিত পরীক্ষা আগামী ৮, ১৫ ও ২২ এপ্রিল ও ১৩ মে বিকেল তিনটা থেকে গ্রহণের জন্য আপনার প্রতিষ্ঠানকে কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহারের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার কেন্দ্রভিত্তিক আসনবণ্টন ও সুনির্দিষ্ট সময় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে জানানো হবে। এছাড়া টেলিটক থেকে এসএমএস পাবেন প্রার্থীরা। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মৌখিক পরীক্ষার জন্য ডাকা হবে।

এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম এবং অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) সোহেল আহমেদের মুঠোফোনে বারবার কল দিয়ে ও এসএমএস পাঠিয়েও মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

১০ মার্চ প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক সভায় এপ্রিল মাসে প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। এপ্রিলের মধ্যে পরীক্ষা নেওয়া শেষে উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের জুলাই মাসের মধ্যে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে সভায় জানানো হয়।

সহকারী শিক্ষকের ৩২ হাজার ৫৭৭টি শূন্যপদে নিয়োগের জন্য প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ২০২০ সালের ২০ অক্টোবর বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। কিন্তু করোনা মহামারির কারণে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হয়নি। ইতোমধ্যে অবসরজনিত কারণে আরও ১০ হাজারেরও বেশি সহকারী শিক্ষকের পদ শূন্য হয়ে পড়েছে। এতে বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষক ঘাটতি দেখা দিয়েছে। এ সমস্যার সমাধানে মন্ত্রণালয় আগের বিজ্ঞপ্তির শূন্যপদ ও বিজ্ঞপ্তির পরের শূন্যপদ মিলিয়ে প্রায় ৪৫ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আপনার পছন্দের লিংকের মাধ্যমে সংবাদটি শেয়ার করুন, আমাদের সাথেই থাকুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2021
Design & Development By : JM IT SOLUTION